ছাত্রীদের অশ্লীল ভিডিও দেখানোর অভিযোগে প্রধান শিক্ষককে পুলিশে সোপর্দ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জে বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের অশ্লীল ভিডিও দেখানো ও যৌন হেনস্তার অভিযোগে গিয়াস উদ্দিন নামের এক প্রধান শিক্ষককে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মাইজবাড়ি এলাকা থেকে ঐ প্রধান শিক্ষককে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। গিয়াস উদ্দিন সুনামগঞ্জ সদরের মাইজবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও শহরের বিলপাড় এলাকার বাসিন্দা।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মাইবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির চার ছাত্রীকে কিছু দিন ধরে নানা অজুহাতে বিদ্যালয়ের ছাদে নিয়ে যেতেন প্রধান শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন। সেখানে তাদের মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও দেখাতেন তিনি। এদিকে ছাত্রীরা অশ্লীল ভিডিও না দেখলে পরীক্ষায় ফেলসহ নানা ভয়ভীতি দেখাতেন এ শিক্ষক। মঙ্গলবারও চার ছাত্রীর মধ্যে দুই ছাত্রীকে ছাদে নিয়ে অশ্লীল ভিডিও দেখানোর চেষ্টা করেন। আর অন্য দুই ছাত্রী ছাদে না গিয়ে বিষয়টি তাদের অভিভাবকদের জানান। পরে ঘটনাটি জানাজানি হয়ে গেলে স্থানীয়রা বিদ্যালয় ঘেরাও শিক্ষককে মারধর করেন। পরে খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে উদ্ধার করে তাদের হেফাজতে নিয়ে আসে।
ছাত্রীদের অভিভাবকরা জানান, বেশ কিছু দিন ধরেই শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন নানা অজুহাতে ছাত্রীদের ছাদে নিয়ে ছাত্রীদের খারাপ ছবি দেখাতো। হাত ধরে টানাটানি করতো। ছবি না দেখলে নানা ভাবে হয়রানি করতো। আজ (মঙ্গলবার) একই কাজ করলে এলাকাবাসী নিয়ে আমরা বিদ্যালয় ঘেরাও করি। আমরা এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দিবো। এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সহিদুর রহমান জানান, বিদ্যালয়ের শিক্ষককে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। ছাত্রীদের পরিবারের লোকজন অভিযোগ দেয়ার জন্য থানায় এসেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন