সিলেটে পুলিশি নির্যাতনে যুবক হত্যা: রায়হানের মাকে ৫০ হাজার টাকা দিল পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার ::
সিলেটে আলোচিত বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত যুবক রায়হান আহমেদের মা সালমা বেগমকে ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেছে জেলা পুলিশ। আজ রবিবার জেলা পুলিশের কল্যাণ তহবিল থেকে এই টাকা প্রদান করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন।

জানা গেছে, রোববার সকালে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে যান রায়হানের মা সালমা বেগম। সাথে রায়হানের চাচা ও মামাতো ভাই ছিলেন।

এরআগে, রায়হান হত্যাকান্ডের ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত এসআই (বরখাস্তকৃত) আকরব হোসেন ভুঁইয়াকে গ্রেফতার করায় জেলা পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন রায়হানের মা সালমা বেগম। রোববার সকাল ১১টার দিকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে এই ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তিনি। জানা গেছে, রায়হানের মা সালমা বেগম, চাচা ও মামাতো ভাই পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে যান। সেখানে আকবরকে গ্রেফতার করায় পুলিশকে ধন্যবাদ জানান সালমা। পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন রায়হানের মাকে সান্ত্বনা প্রদান করেন এবং ন্যায়বিচার নিশ্চিত হবে মর্মে আশ্বস্ত করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর ও মিডিয়া) লুৎফর রহমান জানান, ‘রায়হানের মাকে পুলিশ সুপার মহোদয় জেলা পুলিশের কল্যাণ তহবিল থেকে ৫০ হাজার টাকা এবং রায়হানের শিশু সন্তানের জন্য উপহারসামগ্রী প্রদান করেছেন।’

উল্লেখ্য, রায়হান আহমেদ নগরীর নেহারীপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে। গত ১০ অক্টোবর রাতে তাকে সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে ধরে নেওয়া হয়। পরদিন সকালে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ভর্তি করা হয় ওসমানী হাসপাতালে। পুলিশ দাবি করে, রায়হান ছিনতাইকালে গণপিটুনিতে মারা গেছেন। কিন্তু তার পরিবারের থেকে দাবি করা হয়, পুলিশের নির্যাতনে মারা গেছেন রায়হান। তার স্ত্রী হত্যা এবং হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইনে থানায় মামলা করেন। প্রধান অভিযুক্ত এসআই আকবরকে গেল ৯ নভেম্বর কানাইঘাট সীমান্ত এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।এর আগে আরও তিন পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।

শেয়ার করুন