১৮ কোটি টাকা মূল্যের জাল স্ট্যাম্প-ডাক টিকিট-কোর্ট ফিসহ গ্রেফতার ৪

সিলেটের মানচিত্র ডেস্ক::
রাজধানীতে জাল স্ট্যাম্প, ডাক টিকিট, কোর্ট ফি প্রস্তুত কারখানায় অভিযান চালিয়ে চার জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) রমনা বিভাগ। শনিবার (২১ নভেম্বর) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন মো. আশরাফুজ্জামান ওরফে আকাশ (৪৫), মো. মোরসালিন সরদার সোহেল (৩০), মো. রনি শেখ (২৫) ও মো. আব্দুল আজিজ (২৩)।

ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘গ্রেফতার ব্যক্তিরা দীর্ঘদিন ধরে জাল স্ট্যাম্প তৈরি করে ঢাকা শহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে আসছে। পলাতক অভিযুক্ত মনির মোল্লা ও সাকিবসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনের সহায়তা নিয়ে তারা এই কাজ করে আসছে। প্রতি পাতা জাল স্ট্যাম্প তৈরিতে ১৫-১৬ টাকা খরচ হয় এবং ২৫-৩০ টাকায় তারা ঢাকা শহরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় দিয়ে থাকে বলে স্বীকার করেছে।’

জাল স্ট্যাম্পগুলো উদ্ধার না হলে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়তে পারতো উল্লেখ করে হাফিজ আক্তার বলেন, ‘সাধারণ স্ট্যাম্পগুলোর মধ্যে তারা জাল স্ট্যাম্পগুলো ঢুকিয়ে ব্যবহার করতো। এতে করে সরকার বড় অঙ্কের রাজস্ব হারাতো।’

গত ১৯ নভেম্বর পল্টন ও আশুলিয়া থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা রমনা বিভাগের রমনা জোনাল টিম। এ সময় জাল স্ট্যাম্প প্রস্তুতের জন্য ব্যবহৃত একটি কম্পিউটার, একটি প্রিন্টার, দুটি বড় ইলেকট্রিক সেলাই মেশিন, একটি লোহার সেলাই মেশিন উদ্ধার করা হয়। এছাড়া ১৮ কোটি টাকা মূল্যের জাল স্ট্যাম্প, ডাক টিকিট ও কোর্ট ফি জব্দ করা হয়।

গ্রেফতার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে পল্টন মডেল থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার।

অভিযানের নেতৃত্বদানকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের রমনা জোনের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার মিশু বিশ্বাস বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘তারা দীর্ঘদিন ধরে জাল স্ট্যাম্প কিছু অসৎ ভেন্ডরদের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করে আসছে। এ সব প্রতিষ্ঠানের কারা কারা জড়িত আছে তা আমাদের তদন্তে বের হয়ে আসবে এবং অনতিবিলম্বে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে।’

শেয়ার করুন