ফিলিপসের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে সিরিজ নিউজিল্যান্ডের

স্পোর্টস ডেস্ক::
ঝড়ো সেঞ্চুরির পর ফিলিপসের উদযাপন।
টি-টোয়েন্টিতে নিউজিল্যান্ডের হয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরিটি ছিল কলিন মুনরোর। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গড়া সেই রেকর্ডকে এবার পেছনে ফেলেছেন গ্লেন ফিলিপস। তাও আবার একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে তার রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৭২ রানে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। যে জয়ে ৩ ম্যাচের সিরিজ এক ম্যাচ হাতে রেখেই নিশ্চিত করেছে কিউইরা।

২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একই ভেন্যুতে (মাউন্ট মঙ্গানুই) কিউইদের দ্রুততম সেঞ্চুরিটি করেছিলেন মুনরো। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের সেঞ্চুরিটি করতে তার লেগেছিল ৪৭ বল। এবার তার চেয়েও এক বল কম খেলে রেকর্ডটি নিজের করে নিয়েছেন ফিলিপস। দুই উইকেটের পতনের পর মিডল অর্ডারে নেমে রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়েছেন তিনি।

বিদায় নেওয়ার আগে ৫১ বলে খেলেছেন ১০৮ রানের ইনিংস। পোলার্ডের বলে বিদায় নেওয়ার আগে তার ইনিংসটি ছিল ১০টি চার ও ৮ ছয়ে সাজানো। ঝড়ো ইনিংস গড়ার দিনে আরও কিছু রেকর্ডের সঙ্গী হয়েছেন ফিলিপস। ডেভন কনওয়ের সঙ্গে টি-টোয়েন্টির নন-ওপেনিং পার্টনারশিপে সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড গড়েছেন। তৃতীয় উইকেটে করেছেন ১৮৪ রান। নিউজিল্যান্ডের হয়ে যে কোনও উইকেটেও এটি রেকর্ড জুটি।

১৯.৫ ওভারে ফিলিপস বিদায় নিলেও কনওয়ে ৩৭ বলে অপরাজিত ছিলেন ৬৫ রানে। এই ঝড়ো জুটির সুবাদে ক্যারিবীয়দের সামনে ৩ উইকেটে ২৩৮ রানের স্কোর গড়ে স্বাগতিকরা।

সফরকারীদের হয়ে কোনও বোলারই প্রভাব ফেলতে পারেননি। ৪ ওভারে সবচেয়ে ব্যয়বহুল ছিলেন কিমো পল। দিয়েছেন ৬৪ রান!

বড় লক্ষ্যের সামনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিং ছিল নখদন্তহীন। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ৯ উইকেটে করতে পেরেছে ১৬৬ রান! ইনিংস বড় করতে পারেননি কেউই। সর্বোচ্চ ২৮ রান এসেছে অধিনায়ক পোলার্ডের ব্যাট থেকে।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন জেমিসন ও স্যান্টনার। ম্যাচসেরা হয়েছেন ফিলিপস।

 

শেয়ার করুন